নিয়মাবলী

Educating all students to achieve today and tomorrow in a global community and economy.

Home নিয়মাবলী

নিয়মাবলী
১।  ক্লাস টিচারের দায়িত্ব:
    ক) ক্লাশ শুরু হওয়ার ৫ মি: অপেক্ষার পর কোন টিচার অনুপস্থিত ক্যাপ্টেন এসে তা জানাবে।
    খ) অনুপস্থিতির কারন ক্লাস টিচার/ সাবজেক্ট টিচার নিজে জানাবে।
    গ) অসুস্থতার কারনে শিক্ষক অনুপস্থিত থাকলে প্রধান শিক্ষিকার সাথে আলোচনা সাপেক্ষে

     ক্লাস পরিচালনা করতে হবে।প্রতি শিক্ষার্থীর তথ্য সমৃদ্ধ রেজিষ্টার তৈরী করতে হবে।
    ঘ) কোন ক্লাস ফাঁকা যাবেনা।
    ঙ) ক্লাশ শৃংখলার পূর্ণ দায়িত্ব।
    চ) সিলেবাস ও রিভিশনের বিষয়ে খোঁজ রাখবেন।
    ছ ) শ্রেণির প্রধান হওয়ায় তিনি প্রতিটি শিক্ষার্থীর আচরনগত বিষয়ের নোট রাখবেন।
    জ) একাডেমিক তথ্য রাখবেন।
    ঝ) চিহ্নিত পরিবর্তন নির্দেশনায় থাকবে।
  ২।  বিষয়ভিত্তিক শিক্ষকের দায়িত্ব ও কর্তব্য:
  ক) নিজ বিষয় সম্পর্কে স্পষ্ট ধারনা থাকা
  খ) শ্রেণিতে প্রবেশের পূর্বে সেই বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে শ্রেণিতে প্রবেশ করা।
  গ) নির্ধারিত পাঠ পরিকল্পনা সাথে থাকা।
  ঘ) শ্রেণিতে সময়মত যাওয়া এবং ঘন্টা পড়লে বেড়িয়ে আসা।
  ঙ) বাড়ির কাজ ও শ্রেনির কাজ সময়মতো চেক করা।
  চ) বিজ্ঞান বিষয়ের ক্ষেত্রে হাতে - কলমে শিক্ষা প্রদান করা।
  ছ ) বিষয়ভিত্তিক সহযোগী শিক্ষকের সাথে আলোচনা করে সিলেবাস তৈরী,প্রশ্নের নমুনা তৈরী এবং বাড়ির কাজ    
      দেয়া।
 জ)  অন্যান্য স্কুলের প্রশ্ন দেখা এবং সম্ভব হলে শিক্ষকদের সাথে যোগাযোগ রাখা।
 ঝ) সঠিক সময়ে পরীক্ষার খাতা চেক করে শিক্ষার্থীদের ফেরত দেয়া । এবং তাদের ভুল ধরিয়ে দেয়া।
৩। ক্লাস ক্যাপ্টেনের দায়িত্ব:-
     - ক্লাস শৃংখলা।
     - ক্লাস ওয়ার্ক + হোম ওয়ার্ক খাতা।
     - বোর্ড ও ক্লাশ রুম,বেঞ্চ,পর্দা বাথরুম।

  ৪। শিক্ষার্থীদের দায়িত্ব:
       সর্বদা চলা অবস্থায় থাকবে এবং হাটাঁর সময় শব্দ করা যাবে না।
       সিড়ি ও বারান্দায় নিরবতা ।
     
      শিক্ষককে দেখলে একপাশে সরে দাড়াতে হবে, থেমে যেতে হবে এবং অভিবাদন জানাতে হবে।
      বইপত্র বহনে এগিয়ে সাহায্য করতে হবে।
      কোন কক্ষে ঢুকতে অনুমতি নিতে হবে।
      দুটি ঘন্টা পড়বে। প্রথম ঘন্টায় দাড়িয়ে যাবে। ২য় ঘন্টায় শান্তভাবে যথাস্থানে গমন করতে হবে।
      কোন সংবাদ শিক্ষার্থীকে দিয়ে পাঠালে নির্দিষ্ট ব্যাক্তির নিকট পাঠানোর পর তা এসে জানাতে হবে।
      ৫টি কাজ: শৃঙ্খলা,দলগত কাজ,পারদর্শিতার দল চিহ্নিত করনের জন্য শিক্ষিকার নিকট হতে টাকা দিয়ে ব্যাজ
      কিনতে হবে।  

     পোশাক ও অন্যান্য: ইস্ত্রি করা ছাড়া, অপরিষ্কার ,কানে  দুল, ক্লিপ,নেইলপলিশ, সেমিজ/ আন্ডারওয়্যার ব্যাতীত
     আসলে পাঠ নিতে দেয়া হবে না।
     পোশাক ও ব্যাজ অবশ্যই স্কুল থেকে নিতে হবে।
     অনুপস্থিতির আবেদন পত্র জমা দিয়ে স্কুলের উপস্থিতি দেখতে হবে।
     ৯০ দিন উপস্থিত না থাকলে বাৎসরিক পরীক্ষা দিতে দেয়া হবেনা।
     স্কুল চলাকালে স্কুল ত্যাগ করা যাবেনা। সঙ্গত কারনে পিতা মাতাকে দরখাস্ত করে কতৃপক্ষকে জানাতে হবে।
     যদি কোন ছাত্রী পরপর ৩দিন কারন না জানিয়ে অনুপস্থিত থাকে তার স্থান স্বাভাবিক ভাবে খালি হয়ে যাবে।
     অভিভাবক ও শিক্ষক সম্মেলন - (শিক্ষক পরিচালনা করবেন)
    প্রতি পর্বের পূর্বে অভিভাবকদের সাথে পাঠোন্নতি নিয়ে আলোচনা করবেন।
    পাঠোন্নতির বিবরণ স্বাক্ষর করে স্কুলে ফেরৎ দিবেন।
    যদি কোন অভিভাবক না আসেন,ঐ ছাত্রী শ্রেণিতে যোগ দিতে দেয়া হবে না।
    নিয়মিত নোটিশ বোর্ড হতে তথ্য সংগ্রহ করতে হবে।
    ১০.বেতন সংক্রান্ত :
           প্রতি মাসের ১ - ১২ তারিখ পর্যন্ত  সকাল ১১.০০টা হতে ১২.০০টা পর্যন্ত বেতন নেওয়া হবে ।
           বেতনের টাকা অবশ্যই ভাংতি আনতে হবে।
           কোন মাসে অগ্রিম বেতন নেওয়া হলে তা পূর্বেই জানিয়ে দেয়া হবে।প্রতি টার্ম পরীক্ষার পূর্বে বেতন পরিশোধ  
           করে প্রবেশ পত্র সংগ্রহ করতে হবে। ২ মাসের অধিক বেতন বকেয়া হলে প্রধান শিক্ষিকার নিকট আবেদনপত্র
           দাখিলের মাধ্যমে বেতন  প্রদান করতে হবে। নির্ধারিত তারিখের পর বকেয়া বেতন প্রদানের ক্ষেত্রে বিলম্ব ফি   
          ৫০/= প্রদান করতে হবে।
১১.প্রত্যয়ন পত্র : কমপক্ষে ২দিন পূর্বে দরখাস্তের মাধ্যমে প্রত্যয়নপত্র নিতে হবে।
১২. স্থানান্তর পত্র: কমপক্ষে ২দিন পূর্বে দরখাস্তের মাধ্যমে নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ জমা দিয়ে স্থানান্তর পত্র নিতে হবে।
১৩. ক্লাব কার্যক্রম : . ক্লাব কার্যক্রমে বিভিন্ন দলে অংশগ্রহন বাধ্যতামুলক। প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে কমপক্ষে ১টি ক্লাবে অংশ
নিতে হবে।এটি তার অতিরিক্ত যোগ্যতা বলে ধরে নেওয়া হবে।

১৪. অভিভাবক ও শিক্ষক সম্মেলন:
     ক) অভিভাবকগণ শিক্ষার্থী বিষয়ে জানতে চাইলে পূর্বে থেকে প্রধান শিক্ষক বরাবর স্লিপের মাধ্যমে অনুমতি নিবেন।
     খ) বিদ্যালয়ে পড়ার পাশাপাশি সহকার্যক্রমে অংশগ্রহন বাধ্যতামূলক। এ বিষয়ে অভিভাবকদের সহযোগীতা কাম্য।
     গ) বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতায় প্রতিটি শিক্ষার্থী অংশ নিবে। অপারগতা দরখাস্তের মাধ্যমে অবহিত করবে অংশগ্রহন  
        না করা অবহেলা হিসেবে চিহ্নত হবে।